সংগৃহিত
শিক্ষা

কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ

নুসরাত জাহান ঐশী: আজ তৃতীয় দিনের মতো সরকারি চাকরিতে কোটা পুনর্বহাল সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

রোববার (৯ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এ সমাবেশ করেন তারা। এর আগে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাস্কর্যে এসে সমাবেশে মিলিত হন।

মিছিলে তারা ‘কোটা পুনর্বহাল মানি না, মানবো না’, ‘মেধা না কোটা? মেধা মেধা’, ‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই’ ইত্যাদি স্লোগান দেন। প্রায় কয়েক শতাধিক শিক্ষার্থী এ মিছিলে অংশ নেন।

সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী রিফাত বলেন, যদি মেধাভিত্তিক রাষ্ট্র কায়েম করতে হয়, তাহলে অবশ্যই বৈষম্য বাদ দিয়ে মেধাবীদের সুযোগ দিতে হবে। রাষ্ট্রের সকলের প্রতি আহ্বান, মেধাবীদের হাতে দেশের দায়িত্ব তুলে দিন। আমাদের দাবি একটাই, এ বৈষম্যের কোটা পদ্ধতির নিপাত চাই। আমরা মেধাভিত্তিক বাংলাদেশ গড়তে চাই।

১৭-১৮ ব্যাচের শিক্ষার্থী মোয়াজ্জেম বলেন, আমার হাইকোর্টের রায়কে সম্মান করি। কিন্তু যে রায় ছাত্র সমাজের বিরুদ্ধে যায়, সে রায় আমরা গ্রহণ করতে পারি না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সমতা। কোটা প্রথার মাধ্যমে সে আদর্শের বরখেলাপ হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধারা তাদের রক্ত, শ্রম ও জীবন দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছেন। আমরা তাদের শ্রদ্ধা করি। তাদের প্রয়োজনে সরকার পদক্ষেপ নিতে পারে। কিন্তু তাদের ‍দ্বিতীয়, তৃতীয় প্রজন্মের জন্য যে কোটা পদ্ধতি চালু হচ্ছে, সেটা ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের জন্য অশনি সংকেত। সেই সঙ্গে মেধাভিত্তিক দেশ গড়ার পথে আমরা পিছিয়ে যাবো। দরকার হলে আবারও আঠারো নামবে। আমরা আমাদের অধিকার আদায় করে ছাড়বো।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তামান্না আকতার বলেন, বাংলাদেশে কোনো কোটা থাকা উচিত নয়। আমি নারী হয়ে বলছি, আমি কোনো নারী কোটা চাই না। আমরা মেধার মাধ্যমে আমাদের দেশকে পরিচালনা করতে চাই। আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে বলতে চাই, মেধাবীদের হাতে দেশটাকে ছেড়ে দিন। মেধার মাধ্যমে দেশকে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠন করতে চাই। সেই সুযোগ দিন।

সমাবেশে ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত আল্টিমেটাম দিয়ে বক্তারা বলেন, ২০১৮ সালের কোটা সংক্রান্ত পরিপত্র বহাল রাখতে হবে। তা না হলে আমরা সর্বাত্মক আন্দোলন করে স্কুল-কলেজ পৌঁছে যাবো এবং দেশের রাস্তা-ঘাট বন্ধ করে লাগাতার আন্দোলন গড়ে তুলবো।

সমাবেশ শেষে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধিদল অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে তাদের দাবি সংবলিত একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এবি/এইচএন

Copyright © Amarbangla
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

সিলেটে সাড়ে ৮ লাখ মানুষ পানিবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারতের মেঘালয়...

এবার ভিয়েতনাম সফরে পুতিন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরীয় নে...

সুনামগঞ্জে বন্যায় জনজীবন বিপর্যস্ত

জেলা প্রতিনিধি : বন্যাপ্লাবিত ভাট...

পর্যাপ্ত স্যালাইন-ওষুধ মজুদ রাখার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেট বিভাগের...

বেপরোয়া গতির কারণেই বেশি দুর্ঘটনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ইদানিং বেপরোয়া...

বাংলাদেশের বোলিং চ্যালেঞ্জিং

ক্রীড়া ডেস্ক: গত নভেম্বরের কথা। ব...

আগামী ২৬ জুন খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঈদুল আজহা ও গ্র...

বিষাক্ত মদপানে ভারতে নিহত ৩৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতে বিষাক্ত...

মিয়ানমার থেকে গুলি আসলে পাল্টা গুলি

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্...

টিপু-প্রীতি হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর শাহজাহ...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
খেলা